ঢাকাবৃহস্পতিবার , ২৫ আগস্ট ২০২২
  1. Btribune Eng
  2. আন্তর্জাতিক
  3. এক্সক্লুসিভ
  4. খেলার বার্তা
  5. চাকুরি – শিক্ষা
  6. জাতীয়
  7. ধর্ম
  8. বিজ্ঞান – প্রযুক্তি
  9. বিনোদন
  10. রাজনীতি
  11. লাইফ স্টাইল
  12. স্যোসাল মিডিয়া

মাকে হত্যার পর নিজ ঘরের মেঝে পুঁতে রাখেন ছেলে!

barta-tribune
আগস্ট ২৫, ২০২২ ৫:২৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ঘরের মেঝে খুঁড়ে জমিলা বেগম (৬০) নামে এক নারীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার এ ঘটনা ঘটেছে। বুধবার (২৪ আগস্ট) রাত নয়টার দিকে হারাগাছ ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সিট নাজিরদহ গ্রামের নিজ বাড়ির ঘরের মেঝে খুঁড়ে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

জমিলা বেগম ওই গ্রামের লাল মিয়ার স্ত্রী। এ ঘটনায় ছেলে জামিল মিয়াকে (২২) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ। স্থানীয়রা জানান, গত শনিবার (২০ আগস্ট) সকাল থেকে খোঁজ মিলছিল না জমিলার। এরপর থেকে তার স্বজনরা বিভিন্ন স্থানে খোঁজখবর নিয়েও জমিলার সন্ধান পায়নি।

অবশেষে আজ বুধবার বিকেলে জমিলার বাড়িতে গিয়ে তার ঘরের মেঝে উঁচু অবস্থায় এবং একটি হাত বাইরে বের হওয়া দেখে তাদের সন্দেহ হয়। এসময় স্থানীয়দের সহায়তায় জমিলার ছেলে জামিলকে আটক করে পুলিশে খবর দেন তারা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদেহ উদ্ধার করে।

স্থানীয়রা জানান, জামিলের বাবা আর একটা বিয়ে করে অন্যত্র বসবাস করেন। ওই বাড়িতে জামিল ও তার মা থাকতেন। পারিবারিক বিষয়কে কেন্দ্র করে গত শুক্রবার (১৯ আগস্ট) রাত একটার দিকে জমিলাকে শ্বাসরোধে হত্যার পর তার ঘরের মেঝে খুড়ে পুঁতে রাখেন ছেলে জামিল।

বুধবার বিকেলে ওই ঘরের মেঝে উঁচু এবং একটি হাত বাইরে বের হওয়া দেখে সন্দেহ হলে জামিলকে আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে জামিল তার মাকে হত্যা করে পুঁতে রাখার কথা স্বীকার করেছেন। পরে পুলিশে খবর দেওয়া হয়।

মরদেহ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে কাউনিয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোন্তাছের বিল্লাহ বলেন, মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হবে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য জমিলার ছেলে জামিলকে আটক করা হয়েছে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।