ঢাকারবিবার , ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২
  1. Btribune Eng
  2. আন্তর্জাতিক
  3. এক্সক্লুসিভ
  4. খেলার বার্তা
  5. চাকুরি – শিক্ষা
  6. জাতীয়
  7. ধর্ম
  8. বিজ্ঞান – প্রযুক্তি
  9. বিনোদন
  10. রাজনীতি
  11. লাইফ স্টাইল
  12. স্যোসাল মিডিয়া

একইসঙ্গে করে দুটি সরকারি পদে চাকরি, দুদকের মামলা!

Ar Monna
সেপ্টেম্বর ১১, ২০২২ ৮:৫৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সচিব কানু কুমার নাথ। তিনি একই সঙ্গে ছিলেন ফটিকছড়ির হেয়াকো বনানী ডিগ্রি কলেজের বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক।

তথ্য গোপন করে একসঙ্গে দুটি সরকারি পদে কর্মরত থাকা অবস্থায় সরকারি কোষাগার থেকে তিনি ৫০ লাখ ৫৭ হাজার ২৩৯ টাকা উত্তোলন করে আত্মসাৎ করেছেন। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

রোববার (১১ সেপ্টেম্বর) দুদকের সহকারী পরিচালক নুরুল ইসলাম বাদী হয়ে চট্টগ্রাম সমন্বিত জেলা কার্যালয়- ২ এ মামলা দায়ের করেন। দণ্ডবিধির ৪২০/৪০৯ ও ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫ (২) ধারায় মামলাটি করা হয়।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, কানু কুমার নাথ ১৯৯১ সালে হাটহাজারীর মির্জাপুর ইউপির সচিব হিসেবে যোগদান করেন। পরে ১৯৯৪ সালের ৫ মে আগের চাকরির তথ্য গোপন করে ফটিকছড়ির হেয়াকো বনানী ডিগ্রি কলেজে প্রভাষক হিসেবে যোগ দেন।

১৯৯৫ সালের ১ জুন তিনি এমপিওভুক্ত প্রভাষক হন। পরে ২০০২ সালে তিনি একই কলেজে সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি পান।

২০২১ সালে কানু কুমারের একই সঙ্গে দুটি সরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করার বিষয়টি প্রকাশ পেলে অধিকতর তদন্তের জন্য কলেজের মধ্যেই পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়।

তদন্তে অভিযোগের বিষয়ে প্রাথমিক সত্যতা পায় কমিটি। ২০২১ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি কমিটি তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করে।

অনুসন্ধানকালে প্রাপ্ত রেকর্ডপত্র যাচাই করে দেখা যায়, কানু কুমার নাথ ১৯৯৫ সালের নভেম্বর থেকে ২০২১ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত কলেজের বেতন-ভাতা বাবদ মোট ৫০ লাখ ৫৭ হাজার ২৩৯ টাকা উত্তোলন করেছেন। অন্যদিকে ইউপি সচিবের বেতন বাবদ উত্তোলন করেছেন প্রায় ৪০ লাখ টাকা।

দুই প্রতিষ্ঠানে চাকরি করে সরকারি তহবিল থেকে বেতন-ভাতা উত্তোলন নিয়ে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে আরেকটি তদন্ত কমিটি গঠিত হয়। এ কমিটিও কানু কুমারের বিরুদ্ধে তোলা অভিযোগের সত্যতা পান।

জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে বলা হয় যে, কানু কুমারের এ ধরণের কাজ স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) কর্মচারী চাকরি বিধিমালা, ২০১১ এর বিধি ৩৩ এর উপবিধি ১(গ) ও ২(চ) এর সুস্পষ্ট লঙ্ঘন।

এ ঘটনায় পরবর্তীকালে কানু কুমার নাথের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দায়ের করা হয়। পরে বিভাগীয় তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার শাখার আদেশমূলে তার বেতন বর্তমান স্কেলের নিম্ন স্কেলে অবনমিত করা হয়।

স্কেল অবনমিতর পরিপ্রেক্ষিতে গত ২০২১ সালের ১৪ ডিসেম্বর থেকে কানু কুমার নাথ ইউপি সচিব হিসেবে কর্মরত।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।