ঢাকাবৃহস্পতিবার , ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২
  1. Btribune Eng
  2. আন্তর্জাতিক
  3. এক্সক্লুসিভ
  4. খেলার বার্তা
  5. চাকুরি – শিক্ষা
  6. জাতীয়
  7. ধর্ম
  8. বিজ্ঞান – প্রযুক্তি
  9. বিনোদন
  10. রাজনীতি
  11. লাইফ স্টাইল
  12. স্যোসাল মিডিয়া

টি-20 তে বাংলাদেশ এতই নিচে নেমে গেছে যে এর থেকে খারাপ সম্ভব না: সুজন

barta-tribune
সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২২ ১১:১৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

নামুল বিজয় ব্যর্থ হয়েছেন। তাই বিশ্বকাপে এবার নাম আসছে সৌম্য সরকারের। যেখানে একজনের ব্যর্থতায় সুযোগ পান আরেকজন; সেই বাংলাদেশ দল টি-টোয়েন্টিতে কেমন? টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজনের সরল স্বীকারোক্তি, এই ফরম্যাটে টাইগাররা এতটাই নিচে যে, এর থেকে খারাপ করা সম্ভব না। এমন অবস্থায় তিনজাতি সিরিজ বা বিশ্বকাপে এক দুইটা ম্যাচ জেতাও কঠিন হবে, বলছেন সুজন।

বাদ পড়ার পর টি-টোয়েন্টিতে সৌম্য সরকার এমন কোনো পারফর্ম করেননি। কিন্তু এখানে ফেরার দরজাটা খুলে যায় আরেকজনের ব্যর্থতায়। এবার সেই আরেকজন হচ্ছেন এনামুল বিজয়। এই যখন একটা টি-টোয়েন্টি দলের বাস্তবতা, তখন সেই দল এশিয়া কাপে সবার আগে বিদায় নিবে সেটাই তো স্বাভাবিক। এরই মধ্যে আফগানিস্তান কাঁপন তোলে, হংকং জানান দেয় নতুন দিনের বার্তা। টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজনের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল, টি-টোয়েন্টিতে আসলে কেমন দল বাংলাদেশ?

খালেদ মাহমুদ সুজন বললেন, সত্যি কথা বলতে এখনও আমরা অনেক নিচে। এরচেয়ে নিচে যাওয়ার আর জায়গা নেই। এখন করণীয় হচ্ছে, যত তাড়াতাড়ি আমরা উপরে উঠতে পারি। অবশ্যই আমরা উপরে উঠবো। এক সময় অবশ্যই আমরা এই ফরম্যাটে শক্তিশালী দল হবো। কিছুটা সময় লাগবে সে জন্য। আমাদের সবাইকে ধৈর্য্য ধরতে হবে।

মাঠের বাইরে থেকে সুজনের এই উপলব্ধির সাথে একটা মিল আছে মাঠের লিটন দাসের। ক’দিন আগেই দেশসেরা ব্যাটার তার সতীর্থদের পরামর্শ দিয়েছিলেন মিরপুরের মাঠে অনুশীলন না করতে। এমন উইকেটে অনুশীলন করে নাকি লাভের থেকে ক্ষতিই বেশি! বিশ্বকাপের প্রস্তুতিতে মিরপুরের মাঠে লিটন গ্লাভস হাতে নিলেন ঠিকই। তবে ব্যাট হাতে নামেননি। যদিও ক’দিন পর এখানেই নাকি হবে তিন দিনের প্রস্তুতি ক্যাম্প।

যে মরা উইকেটে পেছন থেকে টানে, সেখানেই প্রস্তুতি নিয়ে বিশ্বকাপে বড় স্বপ্ন দেখা কতটা সম্ভব! এ কথা জানতে চাওয়া হয়েছিল টিম ডিরেক্টরের কাছে। খালেদ মাহমুদ সুজন বললেন, হয়তো নিউজিল্যান্ড সফর বা বিশ্বকাপে এক-দুইটা ম্যাচও জিততে পারবো না। সেখানে ম্যাচ জিতলে নিজেদের ভাগ্যবান মনে করবো। আমাদের এখন এমনই অবস্থা যে আমরা বলতেই পারছি না ম্যাচ জয়ের কথা। তবে আত্মবিশ্বাস আমাদের অবশ্যই আছে। আমি নিজে আত্মবিশ্বাসী এবং চেষ্টা করি ইতিবাচক থাকার। আমি জিততে চাই। আমি মনে করি, আমরা বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়নও হতে পারি।

তবে কংক্রিটের উইকেট বানিয়ে যেমন পরিবর্তনের স্বপ্ন দেখছে বিসিবির গ্রাউন্ডস কমিটি। তেমনি বদলে যাওয়ার হুংকার আছে এই ফরম্যাটেও। সাকিবের নেতৃত্বে এশিয়া কাপে হেরেও তাই ইতিবাচক কিছু নেয়ার চেষ্টাই করছে দল। সুজন বললেন, ভারতের ভিরাট যা পারবে আমাদের আফিফ তা পারবে না, এমনটা মনে করি না। আফিফ হয়তো আরও ভালো পারবে। কিন্তু সাহসের জায়গায়ই আমরা নিজেদের আটকে রাখি।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।