ঢাকাবুধবার , ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২
  1. Btribune Eng
  2. আন্তর্জাতিক
  3. এক্সক্লুসিভ
  4. খেলার বার্তা
  5. চাকুরি – শিক্ষা
  6. জাতীয়
  7. ধর্ম
  8. বিজ্ঞান – প্রযুক্তি
  9. বিনোদন
  10. রাজনীতি
  11. লাইফ স্টাইল
  12. স্যোসাল মিডিয়া

ছাত্রীর গায়ে গরম চা ঢেলে দিলেন ইডেনের ছাত্রলীগ নেত্রী!

Ar Monna
সেপ্টেম্বর ২১, ২০২২ ৫:০৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

একের পর এক বিতর্কে জড়াচ্ছেন ইডেন মহিলা কলেজ ছাত্রলীগের কমিটির নেত্রীরা। এবার অবৈধ শিক্ষার্থী রাখার প্রতিবাদ করায় এক ছাত্রীর গায়ে গরম চা ঢেলে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আয়শা ইসলাম মীমের বিরুদ্ধে। তিনি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তামান্না জেসমিন রীভার অনুসারী।সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় ইডেন কলেজের শহীদ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ছাত্রী নিবাসের ৩১৩ নম্বর কক্ষে এ ঘটনা ঘটে।

অন্যদিকে এই ঘটনায় ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী ২০১৬-১৭ সেশনের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী। এ ঘটনায় হল সুপার বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন তিনি। লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সোমবার সন্ধ্যায় কলেজের শহীদ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ছাত্রীনিবাসের ৩১৩ নম্বর কক্ষে এ ঘটনা ঘটে। এর আগে সকাল ৯টার দিকে হলের পাঠকক্ষে প্রবেশের জায়গা দখল করে মীমের অনুসারী এক শিক্ষার্থী টেবিল বসিয়ে পড়ছিলেন। এতে চলাচলে বিঘ্ন ঘটায় ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী তাকে সরে বসতে বলেন। এ সময় উভয়ের মধ্যে বাগবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে মীমের অনুসারী ভুক্তভোগীকে বলেন, আমি দেখে নেব, কীভাবে তুমি এই কলেজে পড়ো।

পরবর্তীতে সন্ধ্যার দিকে আয়েশা ইসলাম মীম কলেজ ছাত্রলীগের ১০-১২ জন কর্মী নিয়ে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর কক্ষে প্রবেশ করে গালাগাল করেন। এক পর্যায়ে মগে থাকা গরম চা তার পায়ে ঢেলে দেন এবং হাত মচকে দেন। পরে কক্ষের সবাইকে বের হয়ে যেতে বলেন মীম। এ সময় তিনি বলেন, তোর এমন অবস্থা করব যে তুই আত্মহত্যা করতে বাধ্য হবি। তবে ভুক্তভোগীর রুমমেটরা বের হতে অস্বীকৃতি জানালে আরও কিছুক্ষণ মানসিক নির্যাতন করে কক্ষ থেকে দলবলসহ বের হয়ে যান মীম।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত আয়শা ইসলাম মীম গণমাধ্যমকে বলেন, এ রকম কিছুই ঘটেনি। কেউ আমার নামে মিথ্যা অভিযোগ দিচ্ছে। আমি ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলাম না। হল সুপার নাজমুন নাহার অভিযোগপত্র পাওয়ার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ বিষয়ে আমাদের মিটিং আছে। সেখানে এ বিষয়ে আলোচনা হবে। ইডেন কলেজের অধ্যক্ষ সুপ্রিয়া ভট্টাচার্য বলেন, আমরা ঘটনা শুনেছি। হোস্টেল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি দেখছেন।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।